খাবার

খাবার (Food) হলো এমন পদার্থ যা মানুষের বা প্রাণীর পুষ্টি চাহিদা মেটায় ও দেহে শক্তি প্রদান করে, বৃদ্ধি ও মেরামত কাজে সহায়তা করে এবং বিভিন্ন শারীরিক কার্যাবলী সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় সাহায্য করে

খাবার

বাংলাদেশের খাবার বৈচিত্র্যময় এবং সুস্বাদু। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ভিন্ন ভিন্ন ধরনের খাবার প্রচলিত। এখানে কিছু জনপ্রিয় বাংলাদেশি খাবারের তালিকা দেওয়া হলো:

প্রধান খাবার

  1. ভাত: বাংলাদেশের প্রধান খাদ্য। প্রতিদিনের খাবারে ভাত অন্যতম।
  2. রুটি: বিশেষ করে সকালের খাবারে রুটি খাওয়া হয়।

তরকারি ও ডাল

  1. মাছের তরকারি: ইলিশ, রুই, কাতলা, পাঙ্গাস ইত্যাদি মাছের তরকারি।
  2. মাংসের তরকারি: গরুর মাংস, মুরগির মাংস, খাসির মাংস ইত্যাদি।
  3. ডাল: মসুর ডাল, মুগ ডাল, ছোলার ডাল ইত্যাদি।

ভর্তা ও ভাজি

  1. আলুর ভর্তা: সেদ্ধ আলু, পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ এবং সরিষার তেল মিশিয়ে তৈরি করা হয়।
  2. বেগুন ভর্তা: সেদ্ধ বা পোড়া বেগুন, পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ এবং সরিষার তেল দিয়ে তৈরি।
  3. শাক ভাজি: পালং শাক, কলমি শাক, পুঁই শাক ইত্যাদি ভাজি।

মিষ্টি

  1. রসগোল্লা: ছানার বল রসসিক্ত করে তৈরি।
  2. সন্দেশ: ছানা দিয়ে তৈরি মিষ্টি।
  3. মিষ্টি দই: দইয়ের সাথে চিনি মিশিয়ে তৈরি।

পিঠা

  1. ভাপা পিঠা: চালের গুঁড়া ও নারিকেল দিয়ে তৈরি।
  2. চিতই পিঠা: চালের গুঁড়া দিয়ে তৈরি একটি ধরণের পিঠা।
  3. পাটিসাপটা: ময়দা ও নারিকেল দিয়ে তৈরি পিঠা।

আঞ্চলিক খাবার

  1. মুগলাই পরোটা: ঢাকার বিখ্যাত একটি খাবার।
  2. নদীর মাছের বিভিন্ন পদ: পদ্মা নদীর ইলিশ, চিংড়ি ইত্যাদি।

এই সব খাবারগুলোর স্বাদ ও গন্ধ অনন্য এবং বাংলাদেশি খাবারের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির বহন করে।

খাবার

বিভিন্ন দেশের জনপ্রিয় কিছু বিদেশী খাবারের তালিকা নিচে দেওয়া হলো:

ইতালি

  1. পিজা: বিশেষ করে মার্গারিটা পিজা।
  2. পাস্তা: যেমন স্প্যাগেটি বোলোনেজ, পেনি আরাবিয়াটা।
  3. লাসাগনা: স্তর স্তর করে তৈরি মাংস ও পনিরের একটি জনপ্রিয় খাবার।

জাপান

  1. সুশি: ভাত এবং কাঁচা মাছ দিয়ে তৈরি।
  2. রামেন: নুডলস স্যুপ, সাধারণত মাংস বা মাছে তৈরি।
  3. টেম্পুরা: ডুবো তেলে ভাজা সীফুড বা সবজি।

মেক্সিকো

  1. টাকো: টরটিলা রুটি ভরে মাংস, পনির, এবং সালসা দিয়ে তৈরি।
  2. বুরিটো: বড় টরটিলায় মাংস, চাল, মটরশুটি, এবং অন্যান্য উপকরণ মিশিয়ে তৈরি।
  3. গুয়াকামোল: অ্যাভোকাডো, টমেটো, এবং পেঁয়াজ দিয়ে তৈরি ডিপ।

চীন

  1. ডাম্পলিং: ছোট ছোট পেস্ট্রির মধ্যে মাংস বা সবজি ভরে ভাজা বা সেদ্ধ করে তৈরি।
  2. পেকিং ডাক: বিশেষভাবে প্রস্তুত করা হাঁসের মাংস।
  3. চাউমিন: ভাজা নুডলস মাংস ও সবজি সহ।

ভারত

  1. বিরিয়ানি: সুগন্ধি চাল, মাংস, এবং মসলা দিয়ে তৈরি।
  2. তন্দুরি চিকেন: মসলা মাখানো এবং তন্দুরে রান্না করা মুরগির মাংস।
  3. পানি পুরি: ছোট ভাজা রুটি, তেঁতুলের পানি, এবং মশলাদার পুর।

ফ্রান্স

  1. ক্রোয়াসাঁ: পাতলা মাখনের পেস্ট্রি।
  2. এসকারগট: রসুন মাখন দিয়ে রান্না করা শামুক।
  3. কো-কো ভ্যান: মুরগি, মাশরুম, এবং ওয়াইন দিয়ে তৈরি একটি খাবার।

বাংলাদেশের খাবার শুধু পুষ্টির উৎস নয়, এটি দেশের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য এবং জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। খাদ্য পছন্দের মাধ্যমে প্রতিটি অঞ্চলের বিশেষত্ব এবং ঐতিহ্য ফুটে ওঠে। স্থানীয় উপাদান এবং রান্নার পদ্ধতি মিলে যে বৈচিত্র্যময় এবং সুস্বাদু খাবার তৈরি হয়, তা বাংলাদেশের মানুষের প্রতিদিনের জীবনে আনন্দ ও স্বাদ এনে দেয়।

Facebook allnewsview

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *